হজমের সমস্যা দূর করবে যেসব খাবার 0 452

হজম শক্তি বৃদ্ধির উপায়

হজমের সমস্যায় ভুগছেন এমন মানুষের সংখ্যা কম নয়। মাঝে মধ্যেই একটু বেশি খেয়ে ফেললে কিংবা স্বাভাবিকের চাইতে একটু বেশি ভাজাপোড়া খাবার খাওয়ার অভ্যাস থাকলে এ সমস্যা দেখা দিতে পারে। ফলে সারাদিনই কেটে যায় অশান্তিতে। তবে অনেকেই হয়তো জানেন না হজম সমস্যা সমাধানের রয়েছে কিছু প্রাকৃতিক সহজ উপায়।

ছয়টি সহজ উপায় কাজে লাগিয়ে হজমশক্তি বাড়িয়ে নিন আর মুক্ত থাকুন হজম সংক্রান্ত নানা সমস্যা থেকে।

১। শাকসবজির পরিমাণ বাড়ানো

শাকসবজি খেলে হজমের সমস্যা আপনা আপনিই অনেকটা কমে আসে। কারণ শাকসবজি দ্রুত হজম হয় এবং হজমশক্তি বৃদ্ধি করতে সহায়তা করে। সবচেয়ে ভালো হয় যদি সবজি কাঁচা খাওয়া যায়। এতে হজমশক্তি আরও উন্নত হয়।

২। খাবার ভালো করে চিবিয়ে খাওয়া

অনেকেই খাবার দুয়েকবার চিবিয়ে গিলে ফেলেন। এতে হজমের সমস্যা অনেক বেশি বেড়ে যায়। এই কাজটি হজমের সমস্যা বাড়িয়ে তোলে। তাই খাবার খাওয়ার সময় যতটা বেশি চিবিয়ে খাওয়া যায় ততোই আপনার হজমের জন্য ভালো।

৩। গ্রিন টি

হজমশক্তি বাড়ানো এবং হজমসংক্রান্ত সমস্যা এড়াতে গ্রিন টি এর তুলনা নেই। অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ এই গ্রিন টি হজমশক্তি বাড়ায় এবং আমাদের পরিপাকতন্ত্র সুস্থ রাখতে সহায়তা করে। যদি হাতের কাছে গ্রিন টি না পান তবে আদা চা পান করে নিতে পারেন। এতেও অনেক ভালো ফল পাবেন।

৪। ঝাল খাবার

গ্রিন স্টেট ইউনিভার্সিটির একটি গবেষণায় দেখা গেছে, লঙ্কার ক্যাপসাইসিন হজমশক্তি ভালো করতে অনেক বেশি কার্যকরী। খাবার বুঝে শুনে একটু ঝাল দিয়ে খেতে পারলে স্বাভাবিকভাবেই হজমের সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব।

৫। প্রসেসড খাবার এড়ানো

টিনজাত প্রসেসড খাবার খেলে হজমে সমস্যা বেড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা দেখা দেয়। কারণ খাবারগুলো যখন প্রসেস করা হয় তখন অনেক কেমিক্যাল ব্যবহার করা হয়ে থাকে। এসব প্রসেস করা খাবারের কারণে হজমে সমস্যার পাশাপাশি পরিপাকতন্ত্র তার কর্মক্ষমতা হারাতে পারে।

৬। ক্যালসিয়াম যুক্ত খাবার

ক্যালসিয়াম আমাদের হজমশক্তি উন্নত করতে বিশেষভাবে কার্যকর। ক্যালসিয়াম আমাদের পরিপাকতন্ত্রকে সঠিকভাবে পরিচালনা করতেও বেশ সহায়তা করে।

Previous ArticleNext Article

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ৫ প্রকার সবজিতে কমবে শরীরের ওজন, ফিট থাকবে শরীর 0 622

যেসব সবজী ওজন কমায়

অতিরিক্ত ওজন নানা রোগের কারণ। তাই বর্তমানে ওজন নিয়ন্ত্রণ একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। এজন্য অনেকেই খাবার গ্রহণে বিভিন্ন নিয়ম মেনে চলে। কিন্তু এই নিয়ম মানতে গিয়ে প্রতিদিনের খাদ্য তালিকা থেকে পুষ্টিকর খাবার বাদ দিয়ে দিলে চলবে না। শরীর সুস্থ রাখতে হলে পুষ্টির বিকল্প নেই।

আর এজন্য স্বাস্থ্যকরভাবে ওজন কমাতে গেলে প্রথমেই গুরুত্ব দিতে হবে শাক-সবজির ওপর। এমন পাঁচটি সবজি রয়েছে যেগুলো অতিরিক্ত ওজন কমাতে অত্যন্ত সহায়ক।

১। পালংশাক: এই সবুজ সবজি নানা ধরনের পুষ্টিগুণে ঠাসা। এর মধ্যে প্রচুর পরিমাণে আয়রন, পটাসিয়াম এবং ফাইবার রয়েছে। পালংশাকে ক্যালোরির পরিমাণ অত্যন্ত কম। পালংশাক শুধু যে ওজন কমাতে সহায়তা করে তাই নয়, টাইপ- ২ ডায়াবেটিস, হার্টের অসুখ এবং যেকোনও ধরনের ক্যানসার প্রতিরোধেও উল্লেখযোগ্য ভূমিকা নেয়।

২। ব্রোকোলি: ব্রোকোলিকে নিউট্রিয়েন্ট পাওয়ারহাউস বলা যেতে পারে। এর মধ্যে প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম, ভিটামিন সি, ভিটামিন কে এবং আয়রন রয়েছে। ব্রোকলিতে আছে প্রচুর ফাইবার এবং ক্যালোরি কাউন্ট বেশ কম। সেই কারণে ওজন কমাতে অত্যন্ত উপকারী এই সবজি।

৩। ক্যাপসিকাম: এর মধ্যে আছে ভিটামিন সি, ডায়েটারি ফাইবার, ভিটামিন ই, বি৬ এবং ফলিত। ক্যাপসিকাম রান্না করা বেশ সহজ এবং এটি সহজেই অন্য খাবারের সঙ্গে মিশিয়ে দেওয়া যায়। রঙিন এই সবজিতে পানির পরিমাণও বেশি। ক্যাপসিকাম আমাদের মেটাবলিজমের হার বাড়ায় এবং ওজন কমাতে সাহায্য করে।

৪। টমেটো: টমেটোর মধ্যে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট লাইকোপিন। টমেটো ওজন কমাতে অত্যন্ত সহায়ক। পাশাপাশি নিয়মিত টমেটো খেলে বহু ক্রনিক অসুখের থেকেও রক্ষা পাওয়া যায়। আপনি তরকারিতে টমেটো মিশিয়ে সালাদ তৈরি করেন, এটি যেমন সুস্বাদু, তেমনই স্বাস্থ্যকর।

৫। মিষ্টি আলু: দুটো বড় মিলের মাঝে হালকা কিছু খেতে হলে স্ন্যাক হিসেবে আলু দারুণ উপকারী। মিষ্টি আলুতে প্রচুর ফাইবার এবং কমপ্লেক্স কার্ব আছে। এটি ত্বকের পক্ষেও অত্যন্ত উপকারী। গোল আলুর বদলে আপনি মিষ্টি আলু খেতে পারেন।

গেমস প্রেমীদের জন্য দারাজ ফার্স্ট গেইম 0 566

দারাজ ফার্স্ট গেইম

দেশের জনপ্রিয় অনলাইন মার্কেটপ্লেস এবং আলিবাবা গ্রুপের দক্ষিণ এশীয় ই-কমার্স অঙ্গ সংগঠন দারাজ চালু করল দারাজ ফার্স্ট গেইমস (ডিএফজি) নামক অভিনব একটি গেইমিং প্ল্যাটফর্ম যা রেসিং, অ্যাকশন, শুটিং এবং আর্কেডসহ বিভিন্ন ধরণের ফ্রি-টু-প্লে ক্যাজুয়াল গেইমের অ্যাক্সেস সরবরাহ করে।

নতুন এই গেইমিং প্ল্যাটফর্মটি লক্ষ লক্ষ বাংলাদেশিকে ঘরে বসে সামাজিক দূরত্ব অনুশীলনকালীন অনলাইন টুর্নামেন্টের মাধ্যমে সংযোগ স্থাপনে সহায়তা করবে। এ ছাড়া ডিএফজি ব্যবহারকারীদের জন্য থাকছে দারাজ ওয়ালেটে ৩৫,০০০ টাকা পর্যন্ত আকর্ষণীয় পুরস্কার এবং ভাউচার জেতার সুযোগ।

গত কয়েক মাস ধরে সামাজিক দূরত্ব অনুশীলন প্রক্রিয়াটি গেইমিং ইন্ডাস্ট্রিতে একটি অভূতপূর্ব উন্নতি এনেছে এবং ডিজিটাল অ্যাডপশনের হার বৃদ্ধির ক্ষেত্রেও উল্লখযোগ্য ভূমিকা পালন করেছে। গেইমিং অ্যাপগুলো ঘরে বসে বিনোদনের প্রধান জনপ্রিয় উৎস হয়ে উঠেছে। বাংলাদেশি গ্রাহকদের মধ্যে এ জাতীয় বিনোদনের ব্যপক আগ্রহের ফলে তাদের চাহিদা মেটাতে দেশের অনলাইন শপিং জায়ান্ট দারাজ, ভারতের শীর্ষস্থানীয় গেমিং প্ল্যাটফর্ম ফার্স্ট গেইমসের সহযোগিতায় ডিএফজি চালু করছে।

দারাজ (daraz.com.bd) প্রতিনিয়তই গ্রাহকেদের নতুন ধরণের অভিজ্ঞতা তৈরির জন্য উদ্ভাবনী পন্থা অবলম্বন করে যা শুধুমাত্র কেনাকাটার মধ্যেই সীমাবদ্ধ নয়। গেমিফিকেশন সেগমেন্টটি দারাজের জন্য একটি নতুন উদ্ভাবনের কেন্দ্রবিন্দু হয়ে দাঁড়িয়েছে এবং প্রতিষ্ঠানটি এই ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী যে ডিএফজি শীঘ্রই বাংলাদেশের একটি শীর্ষস্থানীয় বিনোদন চ্যানেলে পরিণত হবে যেখানে প্রফেশনাল প্লেয়ার (পেশাদার) এবং ক্যাসুয়াল প্লেয়ার উভয়ই বিভিন্ন রকমের গেইম উপভোগ করতে পারবে।

ডিজিটাল গেমিফিকেশন ক্ষেত্রে সুপরিচিত পেটিএমের ফার্স্ট গেইমসের সাথে চুক্তির ফলে দারাজ (daraz.com.bd) এখন তাদের উন্নতমানের প্রযুক্তির অ্যাক্সেস পাবে এবং অনেক বছরের অভিজ্ঞতাকেও কাজে লাগাতে পারবে।

এই উপলক্ষ্যে দারাজ বাংলাদেশের (daraz.com.bd) হেড অফ ট্রাফিক অপারেশনস বারিশ খন্দকার বলেন- “আমাদের লক্ষ্য দারাজ ব্যবহারকারীদের জন্য সেরা গ্লোবাল গেইমগুলো আনা ও তাদের সর্বাধুনিক কম্পেটিটিভ ফর্ম্যাটগুলি সরবরাহ করা। আমরা জানি আমাদের দেশে ডিজিটাল এন্টারটেইমেন্টের চাহিদা ব্যাপক তাই আমরা নিশ্চিত করতে চাই যেন গ্রাহকরা সহজেই অ্যাক্সেস করতে পারেন। আমরা এই উদ্যোগের মাধ্যমে দেশের প্রযুক্তি শিল্পের উন্নয়নে আরও সহায়তা করতে সক্ষম হবো।

পেটিএম ফার্স্ট গেমসের সিওও সুধাংশু গুপ্ত বলেছেন, “মোবাইল গেমারদের জন্য সবচেয়ে আকর্ষণীয় এবং উদ্ভাবনী গেইম আনার মাধ্যমে সেরা অভিজ্ঞতা প্রদান করাই আমাদের লক্ষ্য। মোবাইল গেইমিং কেবল ভারতে নয়, অনেক উন্নয়নশীল দেশগুলিতে প্রসারিত হচ্ছে এবং আমরা একই যাত্রায় অংশগ্রহণকারীদের সাথে চুক্তিবদ্ধ হতে আগ্রহী। আমরা দারাজের সাথে অংশীদারিত্বের মাধ্যমে বাংলাদেশে একটি বিশ্বমানের গেমিং অভিজ্ঞতা চালু করতে পেরে রোমাঞ্চিত।

লুডো, নিনজা ডুয়ো, ফাইভ ইন অ্যা রো-এর মতন ১৯টিরও বেশি আকর্ষণীয় ও জনপ্রিয় গেইমের মাধ্যমে ডিএফজি গেইমাররা সারা দেশ থেকে তাদের বন্ধুদের সাথে অনলাইনে টুর্নামেন্ট খেলতে পারবে এবং তাদের ওয়ান ভার্সেস ওয়ান (1v1) মোডে চ্যালেঞ্জও করতে পারবে। বাংলাদেশি গেমারদের পছন্দের তালিকা যাচাই করে আগামী দিনে কিছু ফ্যান্টাসি গেইমও অন্তর্ভুক্ত করা হবে এই প্ল্যাটফর্মটিতে। দারাজ শীঘ্রই একটি রিডেম্পশন সেন্টার চালু করবে যেখানে গ্রাহকরা গেইমের উইনিং পয়েন্ট গুলো ব্যবহার করে বিভিন্ন পরিসেবা গ্রহণ করতে পারবে।